বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২ ইং         ০১:৫০ অপরাহ্ন
  • মেনু নির্বাচন করুন

    কুলিয়ারচরে তুহিনুল হক নামে এক শিল্পপতির পায়ে ধরেও ক্ষমা পেলোনা অটোরিকশা চালক


    প্রকাশিতঃ 23 Nov 2022 ইং
    ভিউ- 38
    শেয়ার করুনঃ


    বিশেষ প্রতিনিধিঃ


    কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে তুহিনুল হক (এম.এ) নামে এক শিল্পপতির পায়ে ধরেও ক্ষমা পেলোনা ওয়াজিদ (২০) নামে এক নিরীহ অটোরিকশা চালক। নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হয়েছে তাকে।


    ঘটনাটি ঘটেছে ২৩ নভেম্বর বুধবার দুপুর ১২ টার দিকে কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়ারচর পৌর এলাকার বড়খারচর মোড়ে।


    নির্মম নির্যাতনের শিকার অটোরিকশা চালক ওয়াজিদ পার্শ্ববর্তী বাজিতপুর উপজেলার দিলালপুর ফুলপাড়িয়া গ্রামের আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে।


    ওয়াজিদ বলেন, সে যাত্রী নিয়ে উছমানপুর ভরাডুল থেকে বড়খারচর মোড়ের নিকট আসা মাত্র উত্তর দিক থেকে মোটর সাইকেলযোগে দুইজন লোক কুলিয়ারচর বাজারের দিকে আসতে থাকে। এসময় তার অটোরিকশা দেখে মোটর সাইকেলের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সাথের লোকসহ রাস্তায় পড়ে যায়। এ ঘটনা দেখে দৌড়াদৌড়ি করে সে সহ স্থানীয়রা মোটর সাইকেল চালক ও তার পিছনে বসা লোকটিকে তোলতে যায়। এমন সময় মোটর সাইকেল চালক অটোরিকশা চালককে গেঞ্জির কলারে ধরে এলোপাথাড়ি চর-থাপ্পর ও কিল-ঘুষি মারতে থাকে। অটোরিকশা চালক কান্নাকাটি করে বলে আমার কি দোষ? তখন মোটর সাইকেল চালক বলেন তোর জন্যই আমি এক্সিডেন্ট করেছি। তখন অটোরিকশা চালক মোটর সাইকেল চালকের পায়ে ধরে বলে আমার কোন দোষ নাই স্যার, আমাকে আর মারবেন না। এতে কোন কর্ণপাত না করে অটোরিকশা চালককে নির্মমভাবে একাধিক লাথি মারতে থাকে মোটর সাইকেল চালক। পরে স্থানীয়রা মোটর সাইকেল চালকের হাত থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে অটোরিকশা চালককে কুলিয়ারচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে জানতে পারে মোটর সাইকেল চালক হলেন ভৈরব উপজেলার সাদেকপুর গ্রামের শিল্পপতি মো. তুহিনুল হক (এম.এ)। কুলিয়ারচরে তার একাধিক খামার ও তুহিন কমপ্লেক্স-২ নামে একটি ৫তলা ভবন আছে।


    প্রত্যক্ষদর্শী বড়খারচর মোড়ের ব্যবসায়ী মোমিন, রিপন ও সানাউল্লাহ সহ একাধিক ব্যবসায়ী বলেন, অটোরিকশা চালকের কোন দোষ নেই। মোটর সাইকেলের সাথে অটো রিকশার কোন সংঘর্ষ হয়নি। মোটর সাইকেল থেকে অটোরিকশার দূরত্ব ছিলো প্রায় ১০ হাত। তুহিনুল হক বড় লোক হওয়ায় ও ভৈরবে তার বাড়ি হওয়ায় ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে একজন নিরীহ অটোরিকশা চালককে নির্মমভাবে মারধোর করেছে। তার পায়ে ধরেও নির্যাতন থেকে রেহায় পায়নি অটোরিকশা চালক। লাথির পর লাথি খেতে হয়েছে তাকে। এতেই ক্ষ্যান্ত হয়নি সে। অটোরিকশা চালককে হুমকি দিয়ে বলেছে তাকে ধরে থানায় নিয়ে তার নামে ৫ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের মামলা দিবে। তারা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সুষ্ঠু বিচার দাবী করে বলেন, ইতি পূর্বেও তুহিনুল হক (এম.এ) নিজেকে ভৈরব - কুলিয়ারচরের কৃতি সন্তান দাবী করে ফেসবুকে লেখালেখি করে নিজেকে অনেক বড় নেতা হিসেবে জাহির করে আসছে। ভৈরব থেকে এসে কুলিয়ারচরে কিছু জায়গা কিনে প্রতিষ্ঠান করে নিজেকে ভৈরব- কুলিয়ারচরের কৃতি সন্তান দাবী করে আসছে। যাতে কুলিয়ারচরের মানুষ তাকে ভয় পায়।


    এ ঘটনায় ওই দিন দুপুরেই কুলিয়ারচর পৌর এলাকার পূর্বগাইলকাটা গ্রামের আবু বাক্কারের স্ত্রী ঝিনুক বেগম (৪০) নামে অটোরিকশা চালকের এক আত্মীয় বাদী হয়ে অভিযুক্ত তুহিনুল হকের নামে কুলিয়ারচর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।


    আপনার মন্তব্য লিখুন
    © 2022 muktir71news.com All Right Reserved.