মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২ ইং         ১০:৫৪ অপরাহ্ন
  • মেনু নির্বাচন করুন

    আজ বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার রায়


    প্রকাশিতঃ 27 Nov 2021 ইং
    শেয়ার করুনঃ

    নিউজ ডেস্ক ঃ

    দুই বছর আগে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিল বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে। বুয়েট শেরে বাংলা হলে ছাত্রলীগের বিপথগামী কিছু নেতাকর্মী ঐ হত্যাকাণ্ডে অংশ নেন। নির্মম সেই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় করা মামলার রায় ঘোষণার জন্য আজ রবিবার দিন ধার্য রয়েছে। বেলা ১২টায় এই রায় ঘোষণা করা হবে বলে ইতিপূর্বে ট্রাইব্যুনালের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। 

    সাক্ষীদের জবানবন্দি, জেরা, আসামিদের আত্মপক্ষ সমর্থন ও উভয় পক্ষের কৌঁসুলিদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে ২৫ আসামির বিরুদ্ধে রায়ের জন্য গত ১৪ নভেম্বর এই দিন ধার্য করে দেন ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান। রায় ঘোষণার আগে কারাগার থেকে আজ ২২ আসামিকে আদালতে হাজির করা হবে। রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে ট্রাইব্যুনাল এলাকায় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। 

    ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করে বুয়েট ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে তাদের সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়। এ ঘটনায় পরের দিন চকবাজার থানায় হত্যা মামলা করেন আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ। তদন্ত শেষে ডিবি পুলিশ ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। অভিযুক্তদের মধ্যে ২২ জন কারাগারে রয়েছেন। তিন জন পলাতক রয়েছেন। মামলায় আট জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। 

    যুক্তিতর্ক উপস্থাপনকালে রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলিরা সব আসামির মৃত্যুদণ্ড চেয়ে আদালতে আবেদন জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, আবরারের স্বজনরা এখনো কাঁদছে। তার মা যেন বলতে পারেন, ছেলে হত্যায় ন্যায়বিচার পেয়েছি। অপরদিকে আসামি পক্ষের আইনজীবীরা অভিযোগ থেকে খালাস চেয়ে আদালতে আবেদন জানান। এদিকে আবরারের স্বজনরা রয়েছেন কাঙ্ক্ষিত রায়ের প্রতীক্ষায়। তারা ন্যায়বিচার চেয়েছেন আদালতের কাছে। যাতে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত সব আসামিই সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড পান। 

    রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি মোশাররফ হোসেন কাজল বলেছিলেন, এই হত্যাকাণ্ড কোনো সামান্য বিষয় নয়। ঘটনার আগে আবরার ফাহাদ গ্রামে চলে যান। আসামিরা তার অপেক্ষায় থাকে। বলতে থাকে, আসুক। তিনি হলে এলে তাকে ডেকে নিয়ে কোর্ট বসায়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ আর মৃদু আক্রমণ করে। আস্তে আস্তে আক্রমণ জোরালো হয়। তার প্রতি কেন এত রাগ? শেষ পর্যন্ত পিটিয়েই তাকে মেরে ফেলা হলো। তিনি বলেন, আমরা ন্যায়বিচার চাই। জুলুম বা অবিচারের পক্ষে আমরা নই। যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক সাজা চাই। এ সময় তাকে সহায়তা করেন ট্রাইব্যুনালের পিপি মো. আবু আব্দুল্লাহ ভুইয়া। আব্দুল্লাহ ভুইয়া বলেন, আজ বেলা ১২ টায় রায় ঘোষিত হবে

    মুক্তি / এন সি


    আপনার মন্তব্য লিখুন
    © 2022 muktir71news.com All Right Reserved.
    Developed By Skill Based IT